লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে চামড়া ও নিত্যপণ্য

0
111

পবিত্র ঈদুল আযহা পরবর্তী লকডাউনে কী কী বিষয় লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে তা জানিয়ে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ আজ একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এতে বলা হয়েছে, কুরবানির পশুর চামড়া সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম, চাল, ভোজ্য তেল, চিনি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য পণ্য সংক্রান্ত কার্যক্রম, ঔষধ, অক্সিজেন ও করোনা সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে।

এরই মধ্যে যেসব পণ্য লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে তা জানালো সরকার। আজ সোমবার মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ এক প্রজ্ঞাপনে এসব তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে গত ১৫ জুলাই বৃহস্পতিবার থেকে কঠোর লকডাউনে শিথিলতা আনা হয়েছে। পাশাপাশি একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সরকার জানিয়েছে ঈদের পর আগামী ২৩ জুলাই ভোর ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত পূনরায় কঠোর লকডাউন চলবে।

চামড়াশিল্পে লকডাউন শিথিল করার কথা জানানো হলেও সংশ্লিষ্টদের তেমন কোন প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়নি। বাজারে চামড়ার দাম বেশি না হওয়ায় নিস্তেজ হয়ে আছে ব্যবসায়ীরা। প্রতিবছর কুরবানি চামড়া সংগ্রহে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখে দেশের কওমী মাদরাসাসমূহ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রায় মাদরাসাতেই এ বছর চামড়া কিনতে অনুৎসাহিত করা হচ্ছে। কেবল বিনামূল্যে প্রাপ্ত চামড়াগুলোই সংগ্রহ করা হবে বলে জানিয়েছেন, বিভিন্ন মাদরাসার পরিচালকগণ।

অন্যদিকে কোরবানির পশুর চামড়া ঈদের দুই দিনের (ঈদ-পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা) মধ্যে ঢাকায় পাঠানো যাবে না। শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে দেশের সব জেলায় এ নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে রাজধানীর পোস্তগোলায় আড়তদারদের কাছে একই বার্তা পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, ঈদুল আজহায় কোরবানির চামড়া সংগ্রহ, পরিবহন, সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াকরণ, নিরবচ্ছিন্নভাবে লবণ সরবরাহ নিশ্চিত করতে একটি কন্ট্রোল রুম খুলেছে শিল্প মন্ত্রণালয়। ঈদের দিন থেকে এই কন্ট্রোল রুমে নিরবচ্ছিন্নভাবে দায়িত্ব পালন করবে। এই কন্ট্রোল রুম থেকে এরই মধ্যে স্থানীয় পর্যায়ে বার্তা পাঠানো হয়েছে, যাতে কোনোভাবেই ঈদ-পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা না পেরোলে কোরবানির পশুর চামড়া ঢাকায় না পাঠানো হয়।

কর্মকর্তারা জানান, এবার ঈদের দুই দিন পর থেকে আবার লকডাউন শুরু হওয়ায় মৌসুমি ব্যবসায়ীরা চামড়া কিনেই ঈদের দিন অথবা ঈদের পরদিন দ্রুত ঢাকায় পাঠানোর চেষ্টা করবেন। এতে বেশির ভাগ চামড়া নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কারণ, কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহের পর সেটিতে লবণ দিয়ে সঠিকভাবে সংরক্ষণ করতে হয়। এ কাজটি করতে অন্তত ৪৮ ঘণ্টা সময় লাগে।

 

এর মাধ্যমেকাজী হামদুল্লাহ
পূর্ববর্তী নিবন্ধসাভারে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত নারী উদ্যোক্তার কারখানা বেদখলের চেষ্টা
পরবর্তী নিবন্ধখাগড়াছড়িতে সাপের কামড়ে গৃহবধূর মৃত্যু

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে