আয়া সোফিয়া মসজিদ নিয়ে উদ্বিগ্ন জাতিসংঘ; মন্তব্যে প্রতিবাদ তুরস্কের

0
288

কামাল আতাতুর্কের সময়ে মসজিদ থেকে জাদুঘরে পরিণত হওয়া আয়া সোফিয়াকে আবার মসজিদ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। তবে মসজিদ নিয়ে ইউনেসকোর মন্তব্য করেছে এই ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট নিয়ে তারা চিন্তিত। ইউনেসকোর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, আয়া সোফিয়ার ভবিষ্যৎ নিয়ে তারা খুবই উদ্বিগ্ন।

এদিকে এরদোয়ানের দেশ তুরস্ক বলছে, বৈশ্বিক সংস্থা ইউনেস্কোর এই মনোভাব পুরোপুরি ‘রাজনৈতিক ও পক্ষপাতপূর্ণ’।

গির্জা হিসেবে নির্মিত আয়া সোফিয়া, মুসলিম শাসন প্রতিষ্ঠার পর বৈধ উপায়ে মসজিদে পরিণত হয়। পরে তুরস্কের সেক্যুলার শাসক কামাল আতাতুর্ক একে জাদুঘরে পরিণত করেন এবং ধর্মীয় উপাসনা নিষিদ্ধ করেন। বছর খানেক আগে তা বাতিল করেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান। আয়া সোফিয়া আবার ফিরে পায় মসজিদের মর্যাদা।
জাতিসংঘ বলছে, মসজিদে পরিণত হবার পর আয়া সোফিয়ার রক্ষণাবেক্ষণ এবং ভবিষ্যত ঘিরে তারা চিন্তিত।

এদিকে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দাবি, মসজিদ করা হলেও এই ঐতিহাসিক ভবনের কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। এই সিদ্ধান্তের কোনো নেতিবাচক প্রভাব ভবনের ওপর পড়েনি। সঙ্গে এও জানানো হয়, আয়া সোফিয়া নিয়ে যে ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে, তা মেনে নেওয়া যায় না।

তুরস্ক সরকার জানিয়েছে, জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ তালিকায় থাকা ঐতিহাসিক ভবন নিয়ে সরকারের দায়িত্ব, অধিকার ও ক্ষমতা সম্পর্কে তারা সচেতন।

প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানও শনিবার টুইট বার্তায় বলেন, তুরস্কের সভ্যতার যে আবার সূর্যোদয় হচ্ছে, আয়া সোফিয়া তারই প্রমাণ। তার আশা বিশ্বের শেষদিন পর্যন্ত এর অন্দরে মুসলিমদের প্রার্থনা অনুরণিত হবে।

পূর্ববর্তী নিবন্ধএবার ইরাকে যুদ্ধ শেষ করতে যাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
পরবর্তী নিবন্ধ১৭ মাস পর ওমরাহ করার অনুমতি পাচ্ছেন বাংলাদেশি নাগরিকগণ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে