গণধর্ষণের পর  হত্যাকাণ্ড, আদালতে প্রধান আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী

0
198

আফরোজা সরকার, রংপুর: দেশের রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার গোপিনাথপুর ইউনিয়নের খিয়ারপাড়া গ্রামের ডাঙ্গাপাড়ার স্বামী পরিত্যক্তা আমেনা বেগমকে(৩২) কথিত প্রেমিক তহিদার রহমানের নেতৃত্বে গণধর্ষণের পর নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।

পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া আসামী তহিদার রহমান আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে বলেন, হত্যার পর লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয় যার মাধ্যমে মানুষ ধারণা করতে পারে আমেনা আত্মহত্যা করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পরিদর্শক(তদন্ত) আরিফ আলী।

গত ২৫ জুলাই সকালে আমেনার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের ছোটভাই জিয়াদুল ইসলাম বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর পরই আসামীরা আত্মগোপণ করে। তবে ২৬ জুলাই তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় প্রধান আসামী তহিদার রহমানকে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ওই দিনই সে রংপুরের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রট আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জানান- স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় আমেনা বেগম স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে ক’বছর আগে নানার বাড়িতে চলে আসেন। এ অবস্থায় তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে পার্শ্ববর্তী শালবাড়ী এলাকার আলেমারীর ডাঙ্গার আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে তহিদার রহমানের। ২৪ জুলাই গভীর রাতে তহিদার ফোন করে আমেনাকে বাড়ির বাইরে ডেকে নেয়।

জানা যায়, অত:পর তাকে শারীরীকভাবে মিলনের প্রস্তাব দিলে আমেনা প্রত্যাখ্যান করলে তহিদার রহমান অন্য দু’জনের সহায়তায় তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এরপর অন্যরাও পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে। আমেনা বিষয়টি পরিবারের লোকজনসহ এলাকার লোকজন জানাতে চাইলে তিনজনই ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে উপর্যুপরি শারীরীক আঘাতের পর হত্যা করে।

জবাববন্দীতে প্রধান আসামি জানায়, হত্যাকান্ডের ঘটনা ধামাচাপা দিতে আমেনার গলায় দড়ি পেঁচিয়ে লাশ গাছের ঝুলিয়ে রেখে ওই তিনজন ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

ঘটনার খবর পেয়ে পরদিন বদরগঞ্জ থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। থানায় মামলা হলে পুলিশ কথিত প্রেমিক তহিদারকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। তবে বাকী দু’ আসামী এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পরিদর্শক(তদন্ত) আরিফ আলী বলেন, বিষয়টি মর্মান্তিক। একারণে তাৎক্ষণিকভাবে প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী দু’ আসামীকে ধরতে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

পূর্ববর্তী নিবন্ধরাষ্ট্রপতির কাছে এক আইনজীবীর জরুরি অবস্থা জারির আবেদন
পরবর্তী নিবন্ধযমুনা গ্রুপ ইভ্যালিতে ১ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে