হাজীগঞ্জে ধর্ষণের ঘটনা গুজব: পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি

0
402

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলায় সাম্প্রদায়িক উগ্রতার জেরে মুসলমান কর্তৃক একই হিন্দু পরিবারের মা, মেয়ে ও বোনের মেয়ে ধর্ষিত হবার খবরটি গুজব বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর থেকেই ভাইরাল হয়ে পড়া এই খবরের বিরুদ্ধে বক্তব্য বেরিয়ে আস্তে শুরু করে। একপর্যায়ে হাজীগঞ্জ উপজেলার পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি রুহিদাস বণিকের একটি ভিডিও বিবৃতির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এর আগে, গত শুক্রবার ফেইসবুকে এই সংক্রান্ত একটি পোস্ট পাওয়া যেতে শুরু করেন। ভাইরাল হওয়া সেই খবরে বলা হয়, চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে মুসলিমদের দ্বারা গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক হিন্দু পরিবারের মা, মেয়ে, বোনের মেয়ে। বোনের মেয়েটির বয়স দশ। এবং এই বাচ্চা মেয়েটি মারা গিয়েছে। যদিও খবরের সূত্র কিংবা আক্রান্ত পরিবারের কোন সদস্যের বিবৃতি এক্ষেত্রে উল্লেখ করা হয়নি।

একপর্যায়ে এই খবরের সত্যতা নিরূপণে সোচ্চার হয়ে উঠে অনেকেই। পরবর্তীতে হাজীগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রুহিদাস বণিকের একটি ভিডিও বিবৃতির বরাতে জানা যায় ধর্ষণের তথ্যটি গুজব।

ভিডিও বার্তায় রুহিদাস বণিক বলেন, কতিপয় কুচক্রী মহল হাজীগঞ্জে নারী ও শিশুর শ্লীলতাহানি ঘটেছে বলে এক ধরনের গুজব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছে। তবে এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ, জাতীয় হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বা বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের কোনো নেতৃবৃন্দ অবগত নয়। অতএব সংশ্লিষ্ট সবাইকে এ ধরনের গুজব পরিহার করার জন্য অনুরোধ করছি।’

ঘটনার সত্যতা জানিয়ে হাজীগঞ্জ রামকৃষ্ণ সভা আশ্রমের সাধারণ সম্পাদক নিহা রঞ্জন হালদার মিলন বলেন, ‘এটি সম্পূর্ণ গুজব। যারা এ ধরনের ভুয়া তথ্য ছড়াচ্ছে তাদের আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানাই

চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, ‘ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং নেতারা নিশ্চিত করেছেন, বিষয়টি সম্পূর্ণ গুজব। তিনি গুজবে কান না দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, কোনো কিছু শুনলেই বিশ্বাস না করে আগে তার সত্যতা যাচাই করার চেষ্টা করুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধজেএম সেন হল মন্দিরে হামলা; একদিনে চট্টগ্রামে আটক ৮৩
পরবর্তী নিবন্ধ২০ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তিপরীক্ষা শুরু আজ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে