একসাথে এতো মসজিদের উদ্বোধন বিশ্বে বিরল

সারাদেশে ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

0
159

আফরোজা সরকার, নিজস্ব প্রতিবেদক
সারাদেশে একযোগে ৫০টি মডেল মসজিদের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা বিশ্বে বিরল বলে উল্লেখ করেছে বিশিষ্টজনরা। এসব মসজিদ থেকে ইসলামি গবেষণা, ইসলামি শিক্ষা-সংস্কৃতি ও জ্ঞানচর্চার পাশাপাশি ইসলামের প্রচার ও প্রসার ঘটবে বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকাল সাড়ে দশটায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এস মডেল মসজিদ ও ইসলামি শিক্ষা-সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথম ধাপে সারাদেশে এই ৫০টি মডেল মসজিদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করছি। এর মধ্যে ৫০টি আজ উদ্বোধন করছি। এই মসজিদ থেকে মানুষ যেন ইসলামের মূল কথাটা শিখতে পারে, জানতে পারে। জ্ঞান-বিজ্ঞান, সভ্যতাসহ সবকিছুতে মুসলমানরা অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। তারা পথপ্রদর্শক ছিল। আজকে কেন মুসলিমরা পিছিয়ে থাকবে?’

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান, ধর্মসচিব মো. নূরুল ইসলাম প্রমুখ।

ভার্চুয়ালি এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন থেকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা এবং খুলনা জেলা সদর, রংপুরের বদরগঞ্জ ও সিলেটের সুরমা উপজেলা সদর থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্য, সরকারি কর্মকর্তা ও মুসল্লিরা যুক্ত হন।

জানা যায়, সারাদেশের ৫৬০টি মডেল মসজিদের মধ্যে রংপুর বিভাগে রয়েছে ১১ টি মসজিদ। এর মধ্যে রংপুর জেলার সিটি করর্পোরেশন এলাকা ছাড়াও সদর উপজেলা, মিঠাপুকুর, পীরগঞ্জ ও বদরগঞ্জের নির্মাণধীন মডেল মসজিদ উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনীয় অনুষ্ঠান শেষে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক বলেন, গ্রামের মানুষ এতো সুন্দর দৃষ্টিনন্দন মসজিদ আগে কখনও দেখেনি। রংপুরের এটাই প্রথম মডেল মসজিদ, যা সবাইকে আকৃষ্ট করেছে। এই মসজিদকে ঘিরে গ্রামের নারী-পুরুষ সবাই ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি ইসলামের শিক্ষা-সংস্কৃতি ও জ্ঞান চর্চারও সুযোগ পাবেন। ইসলামের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই অবদান ধর্মপ্রাণ মানুষ কোন দিন ভুলবে না। তিনি বলেন, বদরগঞ্জবাসী তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবে।

অপরদিকে রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল ওয়াহাব ভূঞা বলেন, নতুন করে ইতিহাস লিখতে হলে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নাম স্বর্ণাক্ষরে লিখতে হবে। কারণ একসঙ্গে এতোগুলো মডেল মসজিদ নির্মাণ পুরো বিশ্বেই বিরল। ইসলামের প্রচার ও প্রসারে তাঁর বর্তমান অবদান অনস্বীকার্য।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রংপুরে বদরগঞ্জজ প্রান্তে আরও উপস্থিত ছিলেন, পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য, রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, রংপুরের পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বিভাগীয় পরিচালক কৃষিবিদ নূরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, গণপূর্ত অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ্ আল মামুন, বদরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আহসানুল হক চৌধুরি টুটুল, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বী সুইট, বদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান প্রমুখ।

এফটিপি/কাজী হামদুল্লাহ

পূর্ববর্তী নিবন্ধভোলা কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের প্রতিকী অনশন
পরবর্তী নিবন্ধনুসরাতের সহবাসে সমাজের সর্বনাশ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে