ত্বহা আদনানের বিষয়কে সরকার গুরুত্ব দিয়ে দেখছে -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

0
285

ছয়দিন থেকে তিন সঙ্গীসহ নিখোঁজ ইসলামি আলোচক ত্বহা আদনানের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবার মুখ খুলেছেন। আজ গাজীপুরের সফিপুরে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা আদনানের বিষয়টি সরকার গুরুত্ব দিয়ে দেখছে ‘

মন্ত্রী আরও বলেন, রিসোর্ট হোক আর বার হোক, যেখানে আইন ভঙ্গ হবে, সেখানেই আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যবস্থা নিচ্ছে এবং নেবে।’

গাজীপুরের সফিপুর আনসার ভিডিপি একাডেমিতে ২১তম ব্যাচের (পুরুষ) ব্যাটালিয়ন আনসারদের ছয় মাসের মৌলিক প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

উল্লেখ্য, আবু ত্বহা মুহাম্মদ আদনান নামে পরিচিত ইসলামি আলোচক আফসানুল আদনান এবং তাঁর তিন সহযোগী গত বৃহস্পতিবার থেকে নিখোঁজ হয়েছেন বলে পরিবারের সদস্যরা দাবি করেছেন।

রংপুর থেকে রাজধানী ঢাকার গাবতলী এলাকায় আসার পর তাঁর পরিবার তাঁর সাথে শেষবারের মতো যোগাযোগ করেছিল। রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানান, এ বিষয়ে আদনানের মা আজেদা বেগম তাঁর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

তাঁর মা আজেদা বেগমের মতে আদনান (৩১) তাঁর পরিবার নিয়ে রংপুর শহরে থাকেন। অনলাইনে আরবি পড়ানোর পাশাপাশি তাঁর ছেলে মাঝে মধ্যে জুমআর নামাযের পূর্বে আলোচনা করার জন্য দেশের বিভিন্ন মসজিদে যান। এই শুক্রবার ঢাকার একটি মসজিদে আলোচনা করার জন্য গত বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার দিকে ভাড়া করা একটি গাড়িতে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রংপুর ছেড়েছিলেন আদনান। এসময় সফসঙ্গী হিসেবে আবদুল মুহিত, ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দিন ফয়েজ আদনানের সঙ্গে ছিলেন।

বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে আদনানের স্ত্রী তাঁকে ফোন করলে তিনি জানান, তিনি তখন ঢাকার গাবতলীতে আছেন। এসময় তাঁর মোবাইল ফোনের ব্যাটারিতে চার্জ ফুরিয়ে এসেছিল। এরপর থেকে আদনান ও তাঁর সঙ্গীসহ তাদের সকল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

রাজধানীর দারুসালাম থানার বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানায়, দারুসালাম থানার পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে, তাঁরা এ ঘটনায় একটি মৌখিক অভিযোগ পেয়েছিলেন এবং এর প্রেক্ষিতে তাঁরা আদনানের মোবাইলে শেষ ফোনকলের অবস্থান জানার চেষ্টা করেছিলেন।

দারুসালাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ জানান, “আমরা গাবতলীর সিসিটিভি ফুটেজ চেক করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত তেমন কিছুই পাওয়া যায়নি।”

আদনানের পরিবার আরও দাবি করেছে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া তাঁদের পোস্ট মুছে ফেলার জন্য তাঁদেরকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল।

এদিকে ডিএমপির (ডিবি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট জানিয়েছে, এই ঘটনা সম্পর্কে তাঁদের কাছে কোনও রকম তথ্য নেই।

এফটিপি/কাজী হামদুল্লাহ

পূর্ববর্তী নিবন্ধসিলেটের গোয়াইনঘাটে একই পরিবারের তিনজনকে গলা কেটে হত্যা
পরবর্তী নিবন্ধবর্তমানে আওয়ামী লীগই আওয়ামী লীগের শত্রু -বাণিজ্যমন্ত্রী

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে