ইসলামি তরুণ বক্তা আবু ত্ব-হা আদনানসহ তিন সঙ্গীদের অক্ষত ফেরত চেয়ে মানববন্ধন

0
219

আফরোজা সরকার, রংপুর: রংপুরের আলোচিত ইসলামি তরুণ বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানসহ তার তিন সঙ্গীদের অক্ষত অবস্থায় ফিরে চেয়ে মানববন্ধন সমাবেশ করেছে ২৫ নাং ওয়ার্ডের এলাকাবাসী ও শুভাকাঙ্খীরা। সমাবেশ উপস্থিত সকলেই প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে অশ্রুসিক্ত চার পরিবারের মুখের দিকে তাকিয়ে নিখোঁজদের সন্ধানের জন্য আকুতি জানিয়েছেন। বুধবার বিকেলে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনে রংপুর সিটি করপোরেশনের ২৫নং ওয়ার্ডবাসীর ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে আদনানের পাড়াপ্রতিবেশি, বন্ধুবান্ধব, শুভাকাঙ্ক্ষী, ভক্তসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশগ্রহন করেন।

মানববন্ধনে নাজমুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আদনানেন বন্ধু মোক্তার আলিম, ২৫নং ওয়ার্ডবাসী আনিছুল হক, মাদরাসা ছাত্র ফিরোজ আলম, শুভাকাঙ্খী আমিন উদ্দিন প্রমুখ।  

নাজমুল হক বলেন, ছয়দিনেও চারজন নিখোঁজ আমাদের রংপুরের সন্তান,  চারটি মানুষ গায়েব হয়ে গেছে, এখন পর্যন্ত সন্ধান মিলছে না, এটা অবাক করা ঘটনা। তাও আবার প্রাইভেটকারসহ গায়েব। তিনি আরো বলেন, ইসলামিক বক্তা ত্ব-হা আদনান নিখোঁজ হয়ে যাওয়া আমাদের জন্যও শঙ্কার বিষয়। আমরাও এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ, নিখোঁজ আবু ত্ব-হা আদনানসহ তার সফরসঙ্গী আব্দুল মুকিত, মোহাম্মদ ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দিন ফয়েজের সন্ধান দিন। সরকার চাইলেই তাদের খোঁজ পাওয়া সম্ভব। আমরা ফিরে পেতে চাই আমাদের সন্তান ও আমাদের ভাই কে।

ছাত্র ফিরোজ বলেন, ঘটনার ছয়দিনেও গাড়িসহ নিখোঁজ হওয়া চারজন মানুষের সন্ধানের ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা না থাকায় আমরা  উদ্ধেগজনক। আদনান কোনো রাজনীতি করে না, কোন রাজনীতির সাথে  যুক্ত ছিলেন না। তিনি তার মেধা ও ইসলামিক জ্ঞানের মাধ্যমে আলোচিত বক্তা হয়েছেন। হঠাৎ করে তার গুম হওয়া আমরা মেনে নিতে পারছি না।

এ ঘটনায় আদনানের মা আজেদা বেগম এবং গাড়িচালক আমির উদ্দিন ফয়েজের পরিবার থেকে রংপুর মহানগর কোতোয়ালি থানায় পৃথক দুটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। এছাড়াও আদনানের সন্ধান চেয়ে ঢাকার পল্লবী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন তার ছোট স্ত্রী সাবিকুন্নাহার। এছাড়াও স্বামীকে ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খোলা চিঠি এবং পুলিশের মহাপরিদর্শক এবং র‍্যাবের মহাপরিচালক বরাবরও দুটি চিঠি দিয়েছেন। 

পূর্ববর্তী নিবন্ধরাজশাহীতে লকডাউনের বিধিনিষেধ না মানায় ৫৩ জনকে জরিমানা
পরবর্তী নিবন্ধকারণ ছাড়াই মিনু চারটি বছর অন্ধকার, অবেশেষে আলোতে

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে